শনিবার , ২০ জুলাই ২০২৪ , ৪ শ্রাবণ ১৪৩১

❒ ভোট পড়েছে মাত্র ৫০ শতাংশ!

খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃত্বে সম্রাট-মহেন পরিষদ
প্রকাশ : শনিবার, ২৯ জুন , ২০২৪, ০৯:১৬:০০ পিএম
:
Shornolota_2024-06-29_668025ba59dfb.JPG

❒ নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ ছবি:

খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের (কেইউজে) দ্বি বার্ষিক নির্বাচন ২০২৪-২৫ এ সম্রাট-মহেন পরিষদ বিজয়ী হয়েছে। শনিবার (২৯ জুন) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ভোট অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ১১টি পদে ২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ভোট উৎসবমুখর পরিবেশে সম্পন্ন হলেও ৫০ শতাংশ ভোটার অজ্ঞাত কারণে ভোট দেননি। ১২৬ ভোটের মধ্যে মাত্র ৬৪ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। ভোটে অহীনার বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মো. মুন্সি মাহাবুব আলম সোহাগ। নির্বাচন কমিশনের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) মো. হেদায়েৎ হোসেন মোল্লা ও কেইউজের সদস্য হাসান আল মামুন।

ভোট দিতে আসা সাধারণ সদস্য তপু বিশ্বাস জানান, একটি গণতান্ত্রিক ও গঠনতান্ত্রিক ইউনিয়ন গড়ার লক্ষ্যে আমরা যোগ্য নেতা নির্বাচনে এসেছি। অপর সদস্য বাবুল আকতার জানান, সুন্দরভাবে ভোট দিয়েছি। কোনো সমস্যা হয়নি। আশা করি নির্বাচিত নতুন নেতৃত্ব বিগত দিনের সকল অনিয়মের গঠনতান্ত্রিক বিচার করবে।


ভোট গ্রহণকালে নির্বাচন পরিদর্শনে আসেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত অধিকারী, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি শেখ মো. আবু হানিফ, নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রাসেল।

এ সময় সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক নির্বাচনের পরিবেশ সন্তোষজনক বলে বলেন, উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট চলছে। আমরা চাই শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট সম্পন্ন হোক। নির্বাচনের মধ্যদিয়ে যোগ্য নেতৃত্ব বেরিয়ে আসুক।


এ সময় নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান মো. মুন্সি মাহাবুব আলম সোহাগ বলেন, একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ সম্পন্নের লক্ষ্যে আমরা সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। সুষ্ঠুভাবে সদস্যরা তাদের ভোট প্রদান করছেন। এখানে শ্রম অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন, বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়ন, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন, সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার নেতৃবৃন্দরাও পর্যবেক্ষণ করছেন। একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ভোটগ্রহণ শেষে নির্বাচন কমিশন ভোট গণনা করেন। ১২৬ জন ভোটারের মধ্যে ৬৪ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। ভোট গণনা শেষে নির্বাচন কমিশন ফল ঘোষণা করেন। তবে ভোট পড়েছে মাত্র ৫০ শতাংশ, যা সাধারণত সাংবাদিক সংগঠনগুলোর ভোটে দেখা যায় না।

নির্বাচনে সভাপতি পদে সাঈদুজ্জামান সম্রাট ৫৯ ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী আনোয়ারুল ইসলাম কাজল পেয়েছেন ৩ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে মহেন্দ্র নাথ সেন ৫৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিমল সাহা ৩ ভোট পেয়েছেন। সহ-সভাপতির পদ দুটিতে কাজী শামীম আহমেদ ৫১ ভোট ও মো. আমীরুল ইসলাম ৫৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এসএম নুর হাসান জনি ৩ ভোট, শামীম আশরাফ শেলী ০ ভোট পেয়েছেন। যুগ্ম সম্পাদক পদে এসএম মনিরুজ্জামান ৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এসএম ফরিদ রানা ০৩ ভোট পেয়েছেন। কোশাধ্যক্ষ পদে শেখ জাহিদুল ইসলাম ৫৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী দিলীপ বর্মন ০২ ভোট পেয়েছেন। দপ্তর সম্পাদক পদে সাগর সরকার ৫৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আল মাহামুদ প্রিন্স ০৩ ভোট পেয়েছেন। প্রচার ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে মিলন হোসেন ৫৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. হেলাল মোল্লা ০৫ ভোট পেয়েছেন। নির্বাহী সদস্য ৩টি পদে নেয়ামুল হাসান কচি ৫৮ ভোট, শেখ লিয়াকত হোসেন ৫২ ভোট, উত্তম কুমার সরকার ৫০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মো. হুমায়ুন কবীর ০১ ভোট, আলমগীর হান্নান ০৪, এসএম কামাল হোসেন ০১, মো. হাসানুর রহমান তানজির ০ ভোট পেয়েছেন।

নির্বাচনে পর্যবেক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন শ্রম অধিদপ্তর খুলনার সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)'র সহ-সভাপতি আফরোজা আক্তার ডিউ প্রমুখ।

আরও খবর

🔝